Tips & Tricks

জিমেইল অ্যাকাউন্ট নিরাপত্তা টিপস এন্ড ট্রিক।

একটি জিমেইল অ্যাকাউন্ট বা গুগল অ্যাকাউন্ট আমাদের বর্তমান জীবনে অনেক ভূমিকা পালন করছে। সেইজন্য আমাদেরকে জিমেইল অ্যাকাউন্ট নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে যেন ভবিষ্যতে কোন ধরনের সমস্যার সম্মুখীন না হয়। একটি গুগল অ্যাকাউন্ট বা জিমেইলের নিরাপত্তা কিভাবে আমরা বৃদ্ধি করতে পারি সেই সম্পর্কিত টিপস এন্ড ট্রিক নিয়ে আজকের এই আর্টিকেল।

আমাদের জীবনে জিমেইল যার সম্পূর্ণ নাম হলো গুগল ইমেইল যেটি গুগল অ্যাকাউন্ট হিসাবে ব্যবহার করা হয়। একটি Gmail Account থাকলে থাকলে গুগলের অন্যান্য যতসব সেবা আছে যেমন গুগল ফটোস, গুগল ড্রাইভ, ইউটিউব, সার্চ ইঞ্জিন সহ আরো অনেক সেবা গুলো ব্যবহার করতে পারি। আমরা এই জিমেইল ব্যবহার করে নিজের অনেক গুরুত্বপূর্ণ ফাইল গুলো বা ফটোস গুগল ড্রাইভে সেভ করে রাখি এবং প্রয়োজনের সময় সেটি ডাউনলোড করে নিয়ে ব্যবহার করে থাকি।

আবার গুগল সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহার করার সময় সার্চ করে থাকি যা গুগল অ্যাকাউন্ট লগিন থাকলে সেটির সার্চ হিস্টোরি হারায় যায় না পরবর্তীতে আবার সার্চ করার সময় সহজেই সামনে চলে আসে। এই যে, আমরা অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল গুলো ব্যবহার করছি সেইখানেও রয়েছে জিমেইল অ্যাকাউন্ট আমাদের মোবাইলের যাবতীয় সেটিং তথ্য গুলো গুগলের সাথে Sync করা থাকে ফলে পরবর্তীতে মোবাইল রিসেট দিয়ে সেটআপ করার সময় সহজেই আগের সেটিংস বা সেভ করা নোটস গুলো ফিরে পাই।

এছাড়াও জিমেইল দিয়ে বিভিন্ন ওয়েবসাইট অ্যাকাউন্ট করে রাখি সেটা হতে পারে কোন ব্যাংক অ্যাকাউন্টের, সোশ্যাল মিডিয়ার অথবা অন্যান্য কোন সাইটের। এখন কল্পনা করুন একটি জিমেইল অ্যাকাউন্ট যদি কারো হাতে চলে যায় সে কি কি তথ্য পেতে পারে এবং সেই গুলো দিয়ে কি কি করতে পারে। কাজেই শুধু জিমেইল ব্যবহার করলেই হবে এটি নিরাপদ রাখার দায়িত্ব আমাদের নিজেদেরই।

জিমেইল অ্যাকাউন্ট নিরাপত্তা টিপস এন্ড ট্রিক

জিমেইল অ্যাকাউন্ট নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য যেসব পদক্ষেপ নিতে পারেন তা সংক্ষেপে নিচে তুলে ধরা হলোঃ

শক্তিশালী পাসওয়ার্ড ব্যবহার

জিমেইল অ্যাকাউন্ট বা অন্য কিছুর অ্যাকাউন্ট এই গুলোতে লগিন করার সময় যেন সহজ হয় বা পাসওয়ার্ড সহজে মনে রাখার জন্য অনেকেই দূর্বল পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে থাকে। যা একটি অ্যাকাউন্ট দূর্বল হিসাবে গণনার খাতায় পরে। কখনো শুধু নাম্বার বা ক্যারেক্টার দিয়ে পাসওয়ার্ড তৈরি করবেন না সবকিছু সমন্বয়ে পাসওয়ার্ড তৈরি করার চেষ্টা করবেন। আবার অনেকেই পাসওয়ার্ড মনে রাখার জন্য নিজের নাম, নিজের জন্ম তারিখ, ফোন নাম্বার ইত্যাদি ব্যবহার করে থাকে যা অ্যাকাউন্টের ১২টা বাজায় দিতে পারে।

যখনই একজন হ্যাকার বা অন্য কেউ আপনার অ্যাকাউন্ট অ্যাটাক করার চেষ্টা করবে তখন তার প্রথম চিন্তা থাকে যে, সে তার নাম, ফোন নাম্বার, জন্ম তারিখ ইত্যাদি দিয়ে পাসওয়ার্ড দিয়েছি কি না। এইভাবে একে একে চেষ্টা করে অ্যাকাউন্ট লগিন করার চেষ্টা করতে পারে। সেজন্য যখন কোন নতুন কোন অ্যাকাউন্ট করবেন অথবা পুরান কোন অ্যাকাউন্টের পাসওয়ার্ড এই রকম নাম, নাম্বার, জন্ম তারিখ, নিজের শহরের নাম ইত্যাদি জিনিস দিয়ে করবেন না

সব সময় চেষ্টা করবেন আপনার যে পাসওয়ার্ড সেটা যেন লম্বা হয় এবং এতে ক্যারেক্টার, নাম্বার, চিহ্ন ইত্যাদির সমন্বয়ে পাসওয়ার্ড তৈরি করে সেটি ব্যবহার করবেন। এতে করে আপনার অ্যাকাউন্টে কি ধরনের পাসওয়ার্ড আছে সেটা অনুমান করতে পারবে না অসাধু ব্যক্তিগণ যে আপনার অ্যাকাউন্টের ক্ষতি করতে চাই।

যেখানে সেখানে লগিন করা থেকে বিরত থাকুন

অযথায় অন্য কারো ডিভাইস বা সাইবার ক্যাফে তে গিয়ে নিজের জিমেইল হোক অথবা অন্য কোন অ্যাকাউন্টে লগিন করা থেকে বিরত থাকুন। যদি কখনো অন্যের মোবাইল বা কম্পিউটারে জিমেইল অ্যাকাউন্ট লগিন করার প্রয়োজন পড়ে তাহলে ইনকগনিটো মোডে লগিন করুন এতে কাজ শেষে হয়ে গেলে উইন্ডো কেটে দিয়ে অ্যাকাউন্ট লগআউট হয়ে ফলে জিমেইল অ্যাকাউন্ট থাকবে নিরাপদ।

টু স্টেপ ভেরিকেশন চালু রাখা

টু স্টেপ ভেরিকেশন সিস্টেম হলো জিমেইল একটি লগিন সিকিউরিটি সিস্টেম যেটি চালু রাখলে আপনার অ্যাকাউন্ট পাসওয়ার্ড যদি ভুল করে কেউ পেয়েও যায় তবুও লগিন করতে পারবে না। জিমেইল অ্যাকাউন্ট নিরাপত্তা প্রদান করার জন্য এটি একটি বেস্ট উপায় বলা যায়। টু স্টেপ ভেরিকেশন চালু থাকলে আপনি বা অন্য কেউ লগিন করলেই ডাইরেক্ট লগিন করতে দিবে আগে আপনার মোবাইল নাম্বারে একটি কোড পাঠাবে সেটি ইনপুট দিলেই যে সম্পূর্ণ ভাবে আপনার অ্যাকান্টে প্রবেশ করতে দিবে। টু স্টেপ ভেরিফিকেশন কি এবং কিভাবে সেট করবেন জানতে আর্টিকেলটি পড়ে আসুন।

স্প্যাম ইমেইল থেকে সাবধান

আমাদের জিমেইলে সব সময় প্রয়োজনীয় ইমেইল আসে তা কিন্তু না এর মধ্যে অনেক ইমেইল আসে যেগুলো আমাদের ক্ষতি করতে চাই। স্প্যাম ইমেইল গুলো সাধারণত আপনাকে বিভিন্ন ধরনের লোভনীয় অফার দিবে যেমনঃ লটারি তে টাকা জিতেছেন, আইফোন মোবাইল জিতেছেন, এই লিংকে করলে এতো ডলার পাবেন ইত্যাদি কথা বলা থাকে ইমেইল যেইগুলো তে ক্লিক করলেই ওদের ফাঁদে পড়ে যেতে পারেন।

আবার অনেক সময় বিভিন্ন ওয়েবসাইটের নামে ফেক ইমেইল আসতে পারে ঐখানে এমন বলবে যে আপনার অ্যাকাউন্টটি হ্যাকড হয়ে গেছে যদি বাঁচাতে চান তাহলে এই লিংকে ক্লিক করুন। তাহলে ধরে এটি আপনাকে ফাঁদে ফেলানোর রাস্তা তাই ক্লিক করার আগে দেখবে ইমেইল আসলে ইমেইল কোথায় থেকে এসেছে এবং লিংকের উপর মাউস নিয়ে গিলে গুগলের ডোমেইন দেখায় কি না।

এছাড়াও আরো বিভিন্ন ভাবে আপনাকে ফেক ইমেইলের মাধ্যমে ধোঁকা দিতে পারে এই জন্য কোন সন্দেহ জনক ইমেইল আসলে সেটি ভালো ভাবে পর্যবেক্ষণ করে তারপর সে অনুযায়ী কাজ করতে পারেন।

লগিন ফাঁদ – ফিশিং পেজ থেকে বাঁচুন

কোথায় জিমেইল লগিন করার সময় খেয়াল রাখবেন আসলে আপনি গুগলের কোন ওয়েবসাইট আছেন কি না। এটা নিশ্চিত হবেন যে আপনি যে লিংকে লগিন করছেন সেই লিংকের মধ্যে গুগলের মূল ডোমেইন google.com  আছে কিনা। অনেক সময় আপনাকে বিভিন্ন উপায়ে এমন একটি জিমেইল লগিন পেজে নিয়ে যেতে পারে যেটা দেখতে হুবহু জিমেইলের লগিন পেজের মতো। কিন্তু এটা আসলে গুগলের লগিন পেজ না এটা দেখতে এক, এই ধরেনের ওয়েবসাইট গুলোকে ফিশিং সাইট বলা হয়ে থাকে। এই জন্য যখনি কোথায় লগিন করবেন তখন গুগলের মূল ডোমেইন আছে কিনা লিংকের মধ্যে সেটা নিশ্চিত হয়ে নিবেন।

জিমেইল অ্যাক্সেস

অনেক ধার্ড পার্টি ওয়েবসাইট ও অ্যাপ আছে যাদের ব্যবহার করার অনেক সময় আমরা গুগল অ্যাকাউন্ট দিয়ে সাইন-ইন করে বিভিন্ন অ্যাক্সেস দিয়ে থাকি। এই ক্ষেত্রে আমাদের সবাইকে একটু সাবধান হতে হবে যে ওয়েবসাইটে আমরা অ্যাক্সেস দিচ্ছি সেটা বিশ্বাসযোগ্য কিনা। যেমন অনেক মুভি ডাউনলোডিং ওয়েবসাইট আছে যেগুলো তে মুভির লিংক গুলো গুগল ড্রাইভের শেয়ার্ড এক জায়গা থাকে সেখান থেকে যদি ডাউনলোড করতে হয় আমাদের জিমেইল অ্যাক্সেস দেওয়া লাগে। তো এই ওয়েবসাইট গুলো ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারে, সেজন্য কাজ শেষ হওয়ার পর গুগল অ্যাকাউন্টের সেটিং ঢুকে পারমিশন গুলো রিমুভ করে দিবেন।

https://myaccount.google.com/security নিজের ব্রাউজার থেকে এই লিংকে প্রবেশ করলে দেখতে পারবেন Third-party apps with account access নামে একটি অপশনে আছে সেটিতে ক্লিক করলে যেসব ওয়েবসাইট বা অ্যাপে জিমেইল দিয়ে পারমিশন দিয়ে রেখেছেন সেই গুলো দেখতে পারবেন। যেসব ওয়েবসাইট গুলো থেকে জিমেইল অ্যাক্সেস রিমুভ করতে চান তার উপর ক্লিক করে Remove Access এ ক্লিক করুন।

এইক্ষেত্রে একটু সাবধান থাকবেন এমন কোন গুরুত্বপূর্ণ সাইট থেকে অ্যাক্সেস রিমুভ করবেন না যেটা আসলেই খুব দরকারি ওয়েবসাইট আপনার জন্য।

উপরের এই সাধারণ টিপস এন্ড ট্রিক গুলো অনুসরণ করলে আশা করি আপনার জিমেইল অ্যাকাউন্ট নিরাপত্তা নিয়ে বেশি দুশচিন্তা করতে হবে না। আর হ্যাঁ অবশ্যই রেগুলার ইমেইল চেক করবেন এতে অ্যাকাউন্ট কোন ধরনের উল্টা পাল্টা যেকোন এক্টিভিটি হলে গুগল ইমেইলে করে দেয়। এতে যদি কখনো আপনার অ্যাকাউন্ট হ্যাকড বা কোথায় লগিন হয় তাহলে ইমেইলের মাধ্যমে জানতে পারবেন এবং সেই বুঝে ব্যবস্থা নিতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ

আপনার স্মার্টফোন গরম হলে করণীয়।

কিভাবে ফোল্ডার আইকন পরিবর্তন করবেন?

মোবাইল ফ্যাক্টরি রিসেট দেওয়ার আগে করণীয়।

একটি ব্লগ সাইট তৈরি করার নিয়ম ও ধাপ সমূহ।

১০টি ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট নিরাপত্তা টিপস।

Techmaster BD

প্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন তথ্য ও টিপস এন্ড ট্রিক জানতে ও জানাতে পছন্দ করি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
error: Content is protected !!