ল্যাপটপ নাকি ডেস্কটপ কম্পিউটার

ল্যাপটপ নাকি ডেস্কটপ কম্পিউটার? কোনটি কিনবেন?

আপনি একটি নতুন কম্পিউটার কিনতে চাছেন কিন্তু চিন্তায় আছেন? ল্যাপটপ নাকি ডেস্কটপ কম্পিউটার কোনটি কিনবেন? তাহলে আজকের এই বিশেষ আর্টিকেলটি আপনার জন্য। আজকে আমরা আলোচনা করবো ল্যাপটপ vs ডেস্কটপ কম্পিউটার নিয়ে কোনটি আপনার জন্য সেরা হবে। কোন কম্পিউটারটি আপনার কাজের জন্য ভালো হবে সেটি জানতে হলে এই পোস্টটি মনোযোগ দিয়ে পড়ে বুঝার চেষ্টা করুন।

ল্যাপটপ নাকি ডেস্কটপ কম্পিউটার?

যারা আগে কখনো কম্পিউটার ব্যবহার করে কিন্তু বর্তমানে একটি কম্পিউটার কিনতে চাচ্ছে সেটা হতে পারে পড়ালেখার করার জন্য অথবা কোন প্রফেশনাল কাজ করতে বা শিখার জন্য। সেইসব ব্যক্তিদের একটি সাধারণ প্রশ্ন থাকে যে, ল্যাপটপ নাকি ডেস্কটপ কম্পিউটার কোনটি ভালো? কোনটা দিয়ে সবচেয়ে ভালো কাজ করা যায়, কোনটা বেশি শক্তিশালী বিভিন্ন রকমের প্রশ্ন থাকে মনে। সেই সকল প্রশ্নের সহজ ভাবে এই পোস্টের মাধ্যমে দেওয়ার চেষ্টা করব।

কোনটি সেরা কোনটি ভালো জানার আগে আমাদের জানা প্রয়োজন ল্যাপটপ কি, ডেস্কটপ কি এদের মধ্যে পার্থক্য কোথায়। সেই জন্য ছোট করে একটু জেনে নিন বিষয়টি।

ডেস্কটপ কি?

সাধারণত যে কম্পিউটার আমরা টেবিলের উপর রেখে ব্যবহার করি সেই কম্পিউটার গুলো কে ডেস্কটপ কম্পিউটার বলা হয়ে থাকে। অর্থাৎ আমরা যে কম্পিউটার টেবিলের উপর রেখে ব্যবহার করে সেটি হলো ডেস্কটপ কম্পিউটার। এই ডেস্কটপ কম্পিউটার বিভিন্ন ডিভাইসের সমন্বয়ে কাজ করে যেমনঃ মনিটর, স্পিকার, কীবোর্ড, মাউস ইত্যাদি।

ল্যাপটপ কি?

সাধারণত কোলের উপর রেখে যে কম্পিউটার ব্যবহার করা হয়ে থাকে ল্যাপটপ বলে। অর্থাৎ ল্যাপটপ হলো ডেস্কটপ কম্পিউটারের একটা পোর্টেবল ভার্সন যেটা আপনি বিভিন্ন জায়গাতে নিয়ে গিয়ে ব্যবহার করতে পারেন। ল্যাপটপ কম্পিউটারে স্পিকার, মনিটর, কীবোর্ড ইত্যাদি যন্ত্র গুলো সব একটা ডিভাসের মধ্যে ফিট করা থাকে।

কোনটি কিনবেন?

আপনি ল্যাপটপ কিনবেন নাকি ডেস্কটপ কম্পিউটার কিনবেন সেটি নির্ভর করে আপনার ব্যবহার উপর। অর্থাৎ প্রত্যেক মানুষের কাজের উপর ভিত্তি করে কোনটি নেওয়া সেটি বিবেচনা করা হয়ে থাকে। এখানে অনেক বিষয় আছে আপনার বাজেট কেমন, আপনি কি কাজের জন্য নিচ্ছেন, মেরামত করার খরচত ইত্যাদি জিনিস গুলো চিন্তা-ভাবনা করে নিতে হয়। এখন আপনি কোনটি সেটি ভালো মতো যাচাই বাছাই করতে নিচের পয়েন্ট গুলোর সাথে নিজের অবস্থাটা কে তুলনা করুন তাহলেই উত্তর পেয়ে যাবেন।

বহন যোগ্যতা

কম্পিউটার কেনার আগে আপনাকে প্রথম অবস্থায় যে দিকটা চিন্তা করতে হবে সেটি হচ্ছে কম্পিউটারটি আপনি কোথায় ব্যবহার করবেন। যদি আপনি একজন কর্মজীবি মানুষ হয়ে থাকেন অফিসের কাজের জন্য কিনতে চান তাহলে অবশ্যই আপনার ল্যাপটপ কেনা উচিত। ল্যাপটপ একটি পোর্টেবল ডিভাইস মানে আপনি যখন যেখানে ইচ্ছা নিয়ে যেতে পারবেন এবং ইচ্ছা মতো ব্যবহার করতে পারবেন। অন্যদিকে ডেস্কটপ কম্পিউটার একটি নির্দিষ্ট একটা জায়গা থেকে রেখে ব্যবহার করতে হয় যেকোন জায়গাতে নিয়ে গিয়ে ব্যবহার করতে পারবেন না।

আপনার কাজ কর্ম যদি এমন হয়ে থাকেন যে প্রতিনিয়ত কম্পিউটার নিয়ে যাওয়া দরকার বা মাঝে মধ্যেই আপনার কম্পিউটার দিয়ে বাইরে কাজ করতে যাওয়ার দরকার পরে তাহলে আপনি ল্যাপটপ কম্পিউটার কিনতে পারেন। আর অন্যদিকে যদি আপনার কোথায় কম্পিউটার নিয়ে যাওয়ার না প্রয়োজন থাকে তাহলে ডেস্কটপ কম্পিউটার কিনতে পারেন।

ল্যাপটপ যেকোন জায়গাতে যেকোন অবস্থায় আপনি ব্যবহার করতে পারবেন। এটি ব্যাটারি চালিত হওয়ায় চার্জ দিয়ে কয়েক ঘন্টা ব্যবহার করতে পারবেন ফলে যদি কারেন্ট নাও থাকে তাও আপনি ব্যবহার করতে পারবেন। অপরদিকে ডেস্কটপ কম্পিউটার কারেন্ট চলে গেলে আর ব্যবহার করতে পারবেন না। এক কথায়, যদি আপনার একটি বহনযোগ্য কম্পিউটার লাগে তাহলে ল্যাপটপের বিকল্প নেয়, আর আপনার যদি নড়াচড়া কম করা লাগে নিজের বাসায় রেখে কম্পিউটার ব্যবহার করার সুযোগ থাকে তাহলে অবশ্যই ডেস্কটপ কম্পিউটার নেওয়া ভালো। কারণ যে দামে ল্যাপটপ কিনবেন সেই একই দামে ল্যাপটপের চেয়ে ভালো কনফিগারেশনের ডেস্কটপ কম্পিউটার কিনতে পারবেন।

বাজেট ও কার্য ক্ষমতা বিবেচনা

কম্পিউটার কেনার ক্ষেত্রে বাজেট একটি বড় বিষয় আপনার বাজেট যদি একদম স্বল্প পরিমাণ হয়ে থাকে তাহলে আপনার জন্য ডেস্কটপ না কেনায় উত্তম। আর যদি আপনার বাজেট নিয়ে কোন সমস্যা না থাকে তাহলে আপনি ল্যাপটপ কিনতে পারেন। কারণ হলো আপনি যে টাকা দিয়ে একটি ল্যাপটপ কিনে যে কনফিগারেশনের জিনিস পাবেন যেমন র‍্যাম, স্টোরেজ, প্রসেসর, জেনারেশন পাবেন সেই একই টাকা দিয়ে আপনি ভালো মানের একটি ডেস্কটপ বিল্ড করতে পারবেন। ল্যাপটপ যেহেতু যেকোন স্থানে নিয়ে গিয়ে ব্যবহার করার জন্য তৈরী করা হয় সেই জন্য যন্ত্রটির কে ছোট করে বানানো আর র‍্যাম, প্রসেসর, স্টোরেজ, ডিসপ্লে ইত্যাদি ডিভাইস গুলো একটা নিজের মধ্যে ঢুকানো থাকে।

ছোট করে এই প্রয়োজনীয় জিনিস গুলো একটি যন্ত্রের মধ্যে ঢুকিয়ে ব্যবহার উপযোগী করার জন্য কোম্পানির খরচ বেশি হয়ে থাকে সেই জন্য ডেস্কটপের তুলনায় ল্যাপটপ কম কনফিগারেশনের হওয়া শর্তেও দাম বেশি হয়ে থাকে। সেই জন্য আপনার বাজেট যদি ২৫-৩০+ হয় এবং ল্যাপটপ ঐ ভাবে প্রয়োজন না থাকে তাহলে ডেস্কটপ কম্পিউটার কিনা অনেক উত্তম। আপনি কম টাকায় ভালো প্রসেসর পাবেন যেটার জেনারশন ভালো হবে, ক্লক স্পিড বেশি পাবেন, র‍্যাম, স্টোরেজ ইত্যাদি বেশি কার্য ক্ষমতার নিতে পারবেন।

আপনার যদি বাজেট নিয়ে সমস্যা না থাকে তাহলে আপনি ল্যাপটপ কম্পিউটার কিনতে পারেন। আবার অনেকে আছে যার বাজেট কম কিন্তু ল্যাপটপ ই দরকার তাদের বলছি, যদি আপনার ঐ বাজেটের যে ল্যাপটপ নিতে যাচ্ছেন সেটি যদি ঐ কাজ গুলো করতে সক্ষম হয় তাহলে ল্যাপটপ নিতে পারেন কিন্তু এমন হচ্ছে যে কাজের জন্য নিচ্ছেন সেটি করা যাচ্ছে না তাহলে নেওয়ার চেয়ে না নেওয়া ভালো। আপনি যদি সাধারণ কাজ কর্ম করেন অফিস অ্যাপ্লিকেশন, হালকা ইন্টারনেট ব্রাউজিং তাহলে ল্যাপটপ নিতে পারেন। তাছাড়া ভারী কাজ কর্ম করার জন্য ডেস্কটপের বিকল্প নেয়।

যন্ত্রাংশ ও মেরামত

ডেস্কটপ কম্পিউটার বানানোর ক্ষেত্রে আপনাকে আলাদা আলাদা ভাবে বিভিন্ন যন্ত্রাংশ যেমনঃ র‍্যাম, স্টোরেজ, কীবোর্ড, মাউস, প্রসেসর, মার্দারবোর্ড কিনতে হয়। এর মানে এই যে প্রত্যেকটি পার্টস বিভিন্ন কোম্পানির ও কার্যক্ষমতার রয়েছে আপনি নিজের প্রয়োজন মতো সাজিয়ে নিতে পারেন। আপনার কেনা প্রত্যেকটি যন্ত্রের জন্য আপনি আলাদা আলাদা ওয়ার্ন্টি পাবেন এবং যদি কোন যন্ত্র একবারে নষ্ট হয়ে যায় সেটি সহজেই পরিবর্তন করতে পারবেন নিজে অথবা নিজের ভয় করলে কোন দোকান থেকে পরিবর্তন করে নিতে পারবেন। আবার কেনার সময় দাম ঐ দাম বা বাজার অনুযায়ী কমবেশি দিয়ে কিনতে পারবেন।

অপরদিকে ল্যাপটপের প্রত্যেকটি যন্ত্র তার মার্দারবোর্ডের সাথে যুক্ত থাকে বলে এটি খোলামেলা করা কঠিন। নিজের কোন যন্ত্র পরিবর্তন করা রিস্কি হতে পারে। এছাড়াও ল্যাপটপের প্রত্যেকটি যন্ত্রের দাম ডেস্কটপের তুলনায় একটু বেশি এবং মেরামত খরচটাও বেশি হয়ে থাকে। এই ক্ষেত্রে ল্যাপটপ নাকি ডেস্কটপ কম্পিউটার সেটির উত্তরে বিজয়ী হলো ডেস্কটপ কম্পিউটার। ডেস্কটপ কম্পিউটার আপনি নিজের পছন্দ ও প্রয়োজন মতো সাজিয়ে নিতে পারেন এবং চাইলে ভবিষ্যতে আপগ্রেড করতে পারেন।

ব্যবহার সুবিধা

ল্যাপটপ নাকি ডেস্কটপ কম্পিউটার এই প্রশ্নের উত্তরে আরেকটি বিষয় টানতে হয় ব্যবহারে সুবিধা নিয়ে। সুন্দর ডিভাইন, যেখানে সেখানে ব্যবহার করার সুবিধা, বিল্ড ইন কীবোর্ড, মাউস, ফিগারপ্রিন্ট সেন্সসর, ব্লুটুথ, ওয়াইফাই ইত্যাদি সুবিধা রয়েছে ল্যাপটপে। আপনাকে প্রত্যেকটা জিনিস আলাদা ভাবে কেনার প্রয়োজন হচ্ছে না ইন্টারনেট ব্যবহার করার জন্য ইথার ক্যাবলের প্রয়োজন নেয় কম দামের ল্যাপটপ গুলোতেও আপনি ওয়াইফাই পেয়ে যাবেন। ফাইল ট্রান্সফার করার জন্য ব্লুটুথ প্রযুক্তি ব্যবহার করতে পারবেন এছাড়াও যেকোন ব্লুটুথ ডিভাইস ল্যাপটপের সাথে কানেক্ট করে ব্যবহার করতে পারবেন।

মূলত ল্যাপটপের বিশেষত্ব হলো এটি যেকোন জায়গা নিয়ে যাওয়া যায় ব্যবহার করার জন্য এবং এর সাথে প্রয়োজন জিনিস গুলো আগে থেকেই থাকে বলে কাজ করতে সুবিধা হয়। ডেস্কটপ কম্পিউটার তার দিকে থেকে সেরা তার কার্যক্ষমতা বেশি কিন্তু একই স্থানে রেখে ব্যবহার করতে হয় এবং আগের থেকে ওয়াইফাই, ব্লুটুথ এই ফিচার গুলো থাকে না সাধারণত এর জন্য আলাদা ডিভাইস কিনে ব্যবহার করতে হয়।

গেমিং এর জন্য ল্যাপটপ নাকি ডেস্কটপ কম্পিউটার কোনটি সেরা?

আপনার উদ্দেশ্য যদি হয় কম্পিউটারে গেমস খেলা তাহলে চোখ বন্ধ করে ডেস্কটপ কম্পিউটার কেনা উচিত। কারণ ল্যাপটপ যে দাম দিয়ে কিনবেন সেই দাম দিয়ে আপনি গেম খেলার জন্য একটি ভালো মানের ডেস্কটপ বিল্ড করতে পারবেন। ল্যাপটপ সাধারণত ছোট কাজ বা অফিসের কাজ কর্ম করার জন্য বা প্রোডাক্টিভ কাজের জন্য মানায়। যদিও এখন অনেক গেমিং ল্যাপটপ রয়েছে কিন্তু সেই দিকে যাচ্ছি না কারণ ঐ রকম দাম দিয়ে আমাদের দেশের সাধারণ মানুষরা একটি ল্যাপটপ কিনতে পারবে না। ৫০-৬০ হাজার টাকা দিয়ে যে ল্যাপটপ কিনবেন সেটি দিয়ে প্রোডাক্টিভ কাজ করতে পারবেন চাইলে প্রেসার দিয়ে গেমস ও খেলতে পারবেন কিন্তু দু দিন পর নিজেই বলবেন আর খেলবো না।

কিন্তু ঐ পরিমাণ টাকা দিয়ে যদি একটা ডেস্কটপ কম্পিউটার তৈরী করেন তাহলে বেশি ভালো মতো গেমিং করতে পারবেন। তাই বলবো যদি গেমিং করার উদ্দেশ্য থাকে তাহলে ল্যাপটপ না কেনায় ভালো। সুন্দর করে অভিজ্ঞদের পরামর্শ নিয়ে ঐ টাকা দিয়ে একটি ডেস্কটপ কম্পিউটার তৈরী করে নিন।

হালকা ও ভারী কাজ

আপনি চাইলে স্বল্প বাজেটের একটি ল্যাপটপে ভারি কাজ যেমনঃ ভিডিও ইডিটিং, গ্রাফিক্স ডিজাইন, 3D মডেলিং ইত্যাদি করতে পারবেন না। হয়তো সফটওয়্যার ইনস্টল করে ব্যবহার করতে পারবেন কিন্তু ল্যাগ বা হ্যাং করবে। হালকা কাজের জন্য ল্যাপটপ কম্পিউটার একটা ভালো সমাধান। ভারী কাজ কর্মের জন্য ডেস্কটপ কম্পিউটারের কোন বিকল্প নেয়।

আমার মতে কোনটি সেরা ল্যাপটপ নাকি ডেস্কটপ কম্পিউটার?

এখানে আমার মতামতের চেয়ে আমি আপনার প্রয়োজনটাকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছি। আপনার জন্য কোনটি ভালো সেটি আপনি ডিসিশন নিতে পারবেন। তাও বলে রাখি যদি আপনার বাজেট কম হয়ে থাকে এবং কাজ ভারী মানের হয়ে থাকে তাহলে অবশ্যই ডেস্কটপ কেনা উচিত। আর যদি বাজেট নিয়ে সমস্যা না থাকে তাহলে আপনি বেশি দাম দিয়ে আপনার কাজের উপর ভিত্তি করে একটি ল্যাপটপ কিনতে পারেন।

যতই বিবেচনা করি দিন শেষে ডেস্কটপ কম্পিউটার সুবিধা দিক থেকে অনেক এগিয়ে থাকবে। তবুও আমাদের প্রয়োজনের উপর ভিত্তি করেন জিনিস নেওয়া উচিত।

এই আলোচনাটি টেকনিক্যালি আরো ভালোভাবে করা যেতো কিন্ত সহজ ভাবে বুঝানোর জন্য শুধু মেইন কয়েকটি বিষয় আমি তুলে ধরলাম। আপনি এখান থেকে বিবেচনা করুন যে আপনার কি ধরনের কাজ করার প্রয়োজন আর বাজেট কেমন সেই অনুযায়ী যেকোন একটি কম্পিউটার নির্বাচন করুন।

ধন্যবাদ

আরো পড়ুনঃ

নতুন কম্পিউটার ব্যবহারকারী জন্য ৫ টিপস।

ফ্রি ওয়াইফাই ব্যবহার করার সময় নিরাপদ থাকার উপায়।

উইন্ডোজের সিস্টেম সফটওয়্যার ও সেটিংস পরিচিত।

৮টি শিক্ষণীয় ওয়েবসাইট সম্পর্কে জানুন।

১ মেগাবাইটের সেরা ৫টি অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ।

প্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন তথ্য ও টিপস এন্ড ট্রিক জানতে ও জানাতে পছন্দ করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!